আবারো অনিশ্চয়তায় দক্ষিণ আফ্রিকার ক্রিকেট।

মোট দেখেছে : 143
প্রসারিত করো ছোট করা পরবর্তীতে পড়ুন ছাপা

মোঃ ইমাম হোসেন  রুবেল, ক্রীড়া সংবাদদাতাঃ


দক্ষিণ আফ্রিকার ক্রিকেট অঙ্গনে বাজে প্রভাব ফেলেছে বোর্ডের বর্তমান ভঙ্গুর দশা। ক্রিকেটে অব্যবস্থাপনা, দুর্নীতি ও স্বজনপ্রীতির অভিযোগ তুলে গত মাসে দক্ষিণ আফ্রিকার সরকার ক্রিকেট বোডের কার্যক্রম বন্ধ ঘোষণা করে। ফলে কার্যত ক্রিকেটের নিয়ন্ত্রক হয়ে ওঠে খোদ সরকার। এমন পরিস্থিতিতে সিএসএ আইনি ব্যবস্থা নেওয়ার ঘোষণা দেয়।

গত বুধবার (১৪ অক্টোবর) দক্ষিণ আফ্রিকার ক্রীড়ামন্ত্রী নাথি মথেথোয়া বলেছেন, সরকারি হস্তক্ষেপ কেন করা হবে না তার সদুত্তর জানাতে হবে ২৭ অক্টোবরের মধ্যে। এই সময়ের মধ্যে ক্রিকেট দক্ষিণ আফ্রিকা (সিএসএ- দক্ষিণ আফ্রিকার ক্রিকেট পরিচালনা সংস্থা) যথার্থ উত্তর না দিলে সরকার ক্রিকেটের নিয়ন্ত্রণ তাদের হাতেই রাখবে। ক্রীড়ামন্ত্রী আরো বলেছেন, তিনি আইসিসিকে অবহিত করেছেন- দক্ষিণ আফ্রিকার ক্রিকেটে সরকারি হস্তক্ষেপ বন্ধ হবে না।সেক্ষেত্রে স্পষ্টতই আইসিসির নিয়ম ভঙ্গ হবে। আইসিসির নিয়ম অনুযায়ী, কোনো দেশ বা অঞ্চলের ক্রিকেটে সরকার বা রাজনীতির প্রভাব থাকতে পারবে না। প্রভাব থাকলে পেতে হবে নিষেধাজ্ঞার মত শাস্তি।

সরকারের হস্তক্ষেপের কারণে ইতিপূর্বে ২২ বছর নিষিদ্ধ থাকার করুণ অভিজ্ঞতা আছে দক্ষিণ আফ্রিকার। সংকট কাটিয়ে ধীরে ধীরে দেশটি ক্রিকেট পরাশক্তি হয়ে উঠেছে। এমন পরিস্থিতিতে আবারো নিষেধাজ্ঞার মত শাস্তি এলে অন্ধকারে পতিত হবে দেশটির ক্রিকেট।

আরো দেখুন

সর্বশেষ ফটো